Uncategorized

Breaking: মার্কিন সংস্থা মডার্নার করোনা ভ্যাকসিন আংশিক সফল – Kolkata24x7

ওয়াশিংটন: করোনা মোকাবিলায় সুখবর। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংস্থা মডার্না আইএনসি জানাচ্ছে তাদের তৈরি ভ্যাকসিন শরীরে প্রয়োজনীয় অ্যান্টিবডি তৈরি করতে অনেকটাই সফল হয়েছে। মোট ৪৫জন স্বেচ্ছাসেবকের ওপর মডার্নার তৈরি ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছিল গত মার্চ মাসে। তবে এঁরা কেউই করোনা আক্রান্ত ছিলেন না। এদের মধ্যে ৮জনের শরীরে করোনার মোকাবিলা করার মতো প্রয়োজনীয় অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে বলে খবর।

এই মানব ট্রায়াল চালায় ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিস। এই ৮জন স্বেচ্ছাসেবককে ওই ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ দেওয়া হয়। এক প্রেস বিবৃতির মাধ্যমে মডার্না জানিয়েছে ভ্যাকসিন আংশিক সফল, বলাই যায়। ফলে আশা জাগছে, করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় এই প্রতিষেধক কিছুটা হলেও কাজে দিতে পারে। মানব শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি করে করোনা সংক্রমণ ঠেকানো যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিকে, এই তথ্য প্রকাশ্যে আসার পরেই মডার্নার শেয়ার একলাফে অনেকটাই মূল্যবৃদ্ধি করেছে স্টক মার্কেটে। ২০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে এর শেয়ারমূল্য। মূলত আপাতত গবেষকরা জানার চেষ্টা করছেন, কী ধরণের ও কত পরিমামে অ্যান্টিবডি এই ভাইরাসের মোকাবিলায় শরীরে থাকা প্রয়োজন। সেই সঙ্গে এই প্রতিষেধক কতদিন শরীরে থাকবে ও সুরক্ষা যোগাবে।

দুটি ডোজে যে পরিমাণ অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে, আরও বেশি ডোজে তার থেকে বেশি পরিমাণ অ্যান্টিবডি তৈরি হবে বলেই আশা করা হচ্ছে। এবার দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা শুরু করতে চলেছে মডার্না। মডার্না জানিয়েছে শেষ ধাপের পরীক্ষা জুলাইয়ের মধ্যে সম্পন্ন হবে। ভ্যাকসিনটির নাম mRNA-1273। প্রথম থেকেই এই ভ্যাকসিনটি কার্যকরী ভূমিকা নিয়েছিল বলে দাবি করেছে মডার্না।

এদিকে এর আগে ল্যাবে পরীক্ষার জন্য তাদের তৈরি ভ্যাকসিন প্রস্তুত বলে জানায় ব্রিটিশ সংস্থার হাত দিয়ে ফুসফুসের রোগের অন্যতম কারণ উৎপাদন হয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে পরীক্ষামূলক ভাবে তারা তৈরি করেছে করোনার ভ্যাকসিন। শুধু মানব শরীরে ট্রায়াল বাকি। এর আগের পরীক্ষাগুলিতে ভ্যাকসিন থেকে সদর্থক উত্তরই পাওয়া গিয়েছে বলে দাবি এই সংস্থার। এক বিবৃতি প্রকাশ করে ব্রিটিশ আমেরিকান টোবাকো সংস্থা জানাচ্ছে ক্লিনিকাল ট্রায়ালের জন্য টাকা যোগাড় করছেন তাঁরা। জুনের শুরুতেই ট্রায়ালের ব্যবস্থা করা হবে।

আগামী জুন মাসেই মানব শরীরে করোনা ভ্যাকসিন ট্রায়ালে ফলাফল বেরোবে। যদি সফল হয় ট্রায়াল তবে সেই মাসেই ভ্যাকসিন তৈরির কাজ শুরু করবে নামকরা ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি অ্যাস্ট্রাজেনেকা।





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button
Close
%d bloggers like this: