Uncategorized

রান্নাঘরে এই ১০ জিনিস থাকলে এখনই ফেলে দিন!

রান্নাঘর, যে কোনও বাড়ির অন্যতম গু’রুত্ব পূর্ণ একটি স্থান। কারণ রান্নাঘর যেমন আমাদের খাবারের যোগান দেয় তেমনই এই রান্নাঘর কিন্তু যাবতীয় রো’গের উৎস।রান্নাঘর অ’পরি’ষ্কার থাকলেই সেখানে বাসা বাঁধে জী’বাণুরা।

আর তাই দেখে নিন আপনার সাধের লক্ষ্মীঘরকে সুরক্ষিত রাখতে ঠিক ঠিক জিনিস এখনই ছুঁড়ে ফেলবেন।

১. খোলা খাবার বা পানীয়- কোনও রকম খোলা খাবার, পানীয় রান্নাঘরে রাখবেন না। অ’পনার অজান্তেই তাতে মুখ দিতে পারে পোকামাকড়। পড়তে পারে টিকটিকি। যা কিন্তু স্বা’স্থ্যের পক্ষে খুবই ক্ষ’তিকারক।

২. প্লাস্টিকের তেলের বোতল- প্লাস্টিকের বোতলে তেল অনেকেই ব্যবহার করেন। কিন্তু তা মোটেই বেশিদিন ব্যবহার করবেন না। খুব বেশি ২ মাস। আপনার অজান্তেই ওতে বাসা বাঁধে জীবানুরা।

৩. জলের বোতল কখনই খোলা বা আলগা অব’স্থায় রান্নাঘরে রেখে দেবেন না।

৪. ওয়াইনের বোতল খোলা অব’স্থায় রাকবেন না। দুদিন পর থেকেই ওই বোতলে ফাংগাস জ’ন্মায়। বোতল খুললেই কটূ গন্ধ বা ব্রাউন রঙের কিছু ভাসতে আপনি দে’খতে পাবেন।

৫. মশলা বা হার্বস খোলা অব’স্থায় বেশিদিন বাইরে ফে’লে রাখবেন না। এতে মশলার গন্ধ ন’ষ্ট হয়ে যায়।

৬. খাবার বেশি হলে আম’রা ফ্রিজে রাখি। কিন্তু কখনই তা তিন দিনের বেশি রাখবেন না। তিন দিনের পুরনো খাবার খাওয়া স্বা’স্থ্যের পক্ষে খুবই ক্ষ’তিকারক।

৭. যে স্পঞ্জ দিয়ে বাসন ধোওয়া হয় তা এক সপ্তাহ অন্তর পরিবর্তন করে ফেলুন। জল আর সাবান লে’গে থাকায় ওর মধ্যে ক্ষ’তিকর ব্যাকটেরিয়া জ’ন্মায়। যা আপনি বুঝতে পারবেন না।

৮. বিয়ারের ক্যান ফ্রিজে রাখলেও তা একমাসের বেশি রাখবেন না। একমাসের পর থেকেই ওর মধ্যে ফারমেন্টেশন শুরু হয়।

৯. বেকিং পাউডার, খাবার সোডা ছ মাসের বেশি ব্যবহার করেবেন না। আপনি হয়তো ডেট, মাস মিলিয়েই কিনেছেন। বোতলের গায়ে লেখা থাকে একবছর পর্যন্ত ব্যবহার ক’রতে পারেন। কিন্তু তা করবেন না।

১০. জ্যাম, সসের বোতল সবসময় ভালো করে মুখ ব’ন্ধ করে রাখু’ন। ফ্রিজে রেখেছেন, হয়তো ভালো করে মুখ ব’ন্ধ করেননি তা কিন্তু খেলে শ’রীরে বিষক্রিয়ার সম্ভাবনা থাকে।

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button
Close
%d bloggers like this: