Uncategorized

যে জীবা’ণুনাশক ব্যবহারে ৯০ দিন থাকা যাবে করোনা’মুক্ত

নোভেল করো’না ভা’ইরাসের (কো’ভিড-১৯) সংক্র’মণ এডাতে বিশেষ ধ’রনের জী’বাণুনাশকের (অ্যান্টিমাইক্রোবায়াল কোটিং) সন্ধান দিয়েছেন যুক্তরাষ্টের অ্যারিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক। এই জী’বাণুনাশক কোনো কিছুর ওপর একবার প্রয়োগ করা হলে ৯০ দিন পর্যন্ত করো’না মু’ক্ত থাকবে।

মধ্যপ্রাচ্যের গলফ নিউজে’র প্র’তিবেদন এই তথ্য জা’নানো হয়েছে। বিশেষ ওই জী’বাণুনাশকের ব্যবহারে মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যে ৯০ শতাংশ করো’না ভা’ইরাস ধ্বং’স হবে। আর দু’ঘণ্টার মধ্যে করো’না র ৯৯.৯৯ ভাগ জী’বাণু খুঁজে পাওয়া যাবে না।

অ্যারিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীব বিজ্ঞানী ও গবেষণাটির জ্যেষ্ঠ অধ্যাপক চার্লস গের্বা বলেছেন, এই আবিষ্কারে নতুন করো’না র প্র’তিরো’ধে এক ধাপ অগ্রগতি হলো।

মানুষকে সংক্র’মিত করে এমন আরেক ধ’রনের করো’না ভা’ইরাস ২২৯ই-এর ওপর জী’বাণুনাশকটির পরীক্ষা চালিয়েছেন গবেষকরা। নতুন করো’না ভা’ইরাসের স’ঙ্গে ২২৯ই করো’না ভা’ইরাসের গঠন প্রকৃতি ও জিনগত মিল রয়েছে। ২২৯ই করো’না ভা’ইরাসের কারণে মানুষ সামান্য সর্দি-জ্বরে আক্রা’ন্ত হয়।

পরীক্ষায় দেখা গেছে, কোনো বস্তুর ওপর বর্ণহীন জী’বাণুনাশকটি একবার প্রয়োগের পর তিন থেকে চার মাস তার ধারে কাছে ঘেঁষতে পারেনি করো’না ভা’ইরাসের জী’বাণু।

এটি কোনো রকেট সায়েন্স নয় বলে জা’নিয়েছেন গবেষকরা। এক দশক ধ’রে জী’বাণুনাশকের এই প্রযু’ক্তি ব্যবহৃত হয়ে আ’সছে। বিভিন্ন সময় হাসপাতাল জী’বাণুমু’ক্ত রাখতে এর ব্যবহার হয়েছে।

চার্লস বলেন, সাধারণ মানুষের অনেক বেশি চলাচল রয়েছে এমন জায়গায় এই জী’বাণুনাশক ব্যবহার করা যেতে পারে। গণপরিবহন বা ট্রেন আপনি একবার সাধারণ উপায়ে জী’বাণুনাশক করলেন। কিন্তু পরক্ষণেই সেখানেই আরও লোক উঠবে এবং সংক্র’মণ ের আশ’ঙ্কা তৈরি হবে। সে ক্ষেত্রে নতুন জী’বাণুনাশক পদ্ধতি ব্যবহার ভালো ফল দেবে।

লকডাউনের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো যখন খু’লে দেয়া হবে তার আগে শ্রেণিকক্ষে এ জী’বাণুনাশক ব্যবহার করা যেতে পারে বলে জা’নিয়েছেন অধ্যাপক চার্লস।



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button
Close
%d bloggers like this: