অপরাধঅসুস্থ বৃদ্ধাকরোনা

বৃদ্ধা মাকে মাজারে ফেলে রেখে পালিয়েছে তার নিজ সন্তানেরা


সিরাজগঞ্জে অ’সুস্থ বৃদ্ধা মা’কে মাজারে ফেলে রেখে পালিয়েছে তার নিজ সন্তানেরা। সম্প্রতি এমন ঘটনা ঘটেছে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার বাদলবাড়ী মাজার এলাকায়। মাজারে পরে থাকা অ’সহায় এই

মায়ের পাশে দাঁ’ড়িয়েছে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন দি বা’র্ড সেফটি হাউসের কয়েকজন তরুণ। চিকিৎসা সেবা দিয়ে সু’স্থ করে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে চান তারা।

যে মা ১০ মাস ১০ দিন গর্ভে ধারণ করে পৃথিবীর আলো দেখিয়েছে। শিশুকাল থেকে লালন-পালন করে বড় করে তুলেছে, সেই মা কেই গত শনিবার দিনের কোন এক সময় তার নিজ স’ন্তানেরা শাহজাদপুরে হযরত শাহ

হাবিবুল্লাহ (রহ:), মাজারে রেখে যায়। কিন্তু পরের দিন বৃদ্ধাকে কেউ নিতে না আসায় এলাকাবাসী তাকে বাইরে একটি ঘরের বারান্দায় রেখে দেয়।

স্থানীয়রা জানান শারিরীক ভাবে অ’সুস্থ হওয়ায় বৃ’দ্ধ মাকে রেখে পা’লিয়েছে তার সন্তানেরা। অ’সুস্থ বৃ’দ্ধা নিজের নাম বলতে পারলেও সন্তানদের নাম ও ঠিকানা কিছুই বলতে পারছে না। অ’সহায় এই মায়ের পাশে

এসে দাড়িয়েছে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন দি বার্ড সেফটি হাউসের কয়েকজন তরুণ। পরম যত্নে তাকে তুলে এনে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থা করেছে। সুস্থ করে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে চা’ন তারা।

দি বার্ড সেফটি হাউস এর সভাপতি মামুন বিশ্বাস বলেন, আমরা জানতে পারি এই মহিলাকে শাহজাদপুর রেখে যায়। পরে শুনতে পারি এখানে তার স্বজনরা রেখে যান। আমরা ধারণা করছি তিনি মা’নসিক রো’গী।

পরবর্তীতে আমরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে এসে ভর্তি করায়। বাবা মাকে কখনও ফেলে যাবেন না। বৃ’দ্ধ বয়সে বাবা মা এতটুকু আশা করে যেন বৃ’দ্ধ বয়সে তারা যেন তাদের ভালো রাখে।

হা’সপাতালের চিকিৎসক জানান বৃ’দ্ধা মা’নসিকভাবে অ’সুস্থ। তার সুচিকিৎসার জন্য হাসপাতাল এর পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

জামাতে টানা ৪০ দিন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করে সাইকেল পেল ১৫ কিশোর

টা’না ৪০ দিন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ জামাতে আদায় করায় ১৫ কিশোর পুরস্কৃত করা হয়েছে সিলেটের এক মসজিদ কমিটি।এসব নিয়মিত নামাজ আদায়ের পুরস্কার হিসেবে এসব কিশোরদের প্রত্যেককে বাইসাইকেল দিয়েছেন তারা।এমন অভিনব কর্মসূচি পালন করেছে সিলেটে সৈয়দ হাতিম আলী (রহ.) মাজার জামে মসজিদ।

শিশু কিশোরদের নামাজে আগ্রহী করতেই এই সাইকেল বিতরণ কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে মসজিদ কর্তৃপক্ষ।মঙ্গলবার বিকেলে ওই কিশোরদের পুরস্কার হিসেবে বাইসাইকেল দেয়া হয়।

সৈয়দ হাতিম আলী (রহ.) মাজার জামে মসজিদ কমিটির সূ’ত্রে জানা গেছে, গত ১৬ ডিসেম্বর থেকে এই প্রতিযো’গিতা শুরু হয় যেখানে ওই এলাকার ৩৩ জন শিশু-কিশোর অংশ নেয়। টা’না ৪০ দিন পাঁচ ওয়াক্ত

নামাজ মসজিদে এসে আদায় করতে সক্ষ’ম হয় ১৫ কিশোর। মঙ্গলবার সেই ১৫ কিশোরকে অনুষ্ঠানিকভাবে বাইসাইকেল দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়েছে। তবে যারা টা’না ৪০ দিন নামাজ আদায় করতে পারেনি তাদেরকেও নিরা’শ করেনি আয়োজকরা। সেই ১৮ শিশু-কিশোরদের একটি করে জায়নামাজ প্রদান করেছেন তারা।

এ বিষয়ে স্থানীয়রা জানিয়েছেন, তুরস্কের দেখাদেখি এমন প্রতিযোগিতার বিষয়ে ভাবনা হয় শিবগঞ্জের সৈয়দ হাতিম আলী (রহ.) মাজার জামে মসজিদ কমিটির।



Source link

Tags

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
%d bloggers like this: