Uncategorized

বাংলাদেশে যে ওষুধে করো’নায় সুস্থের হার বাড়ছে

বাংলাদেশে ইভা’রমেকটিন, ডক্সিসাইক্লিন ব্যবহারে করো’না মুক্তির হার বেড়েছে কয়েক গুণ।

রাজধানীর কেন্দ্রীয় পু’লিশ হাসপাতা’লে দেড় হাজার আ’ক্রান্ত রোগীর ওপর এই ওষুধ ব্যবহার করে এমন দাবি করছেন চিকিৎসকরা।

তবে বিশেষজ্ঞরা এর ব্যবহারকে স্বাগত জানালেও গুরুত্ব দিচ্ছেন গবেষণায়। স্বাস্থ্য বিভাগও বলছে, বিষয়টি নিয়ে কাজ করছেন তারা।

করো’নায় ফ্রন্ট লাইন যোদ্ধাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আ’ক্রান্ত পু’লিশ। সংখ্যাটা দুই হাজারের বেশি। প্রথম’দিকে প্রতিদিন গড়ে বিশ থেকে ত্রিশজন রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। তবে গত চার পাঁচদিনে সেই সংখ্যা প্রতিদিন প্রায় এক’শ।

হাসাপাতা’লের চিকিৎসকদের দাবি, ইভা’রমেকটিন, ডক্সিসাইক্লিন ব্যবহারের ফলেই বাড়ছে সেরে ওঠা রোগীর সংখ্যা। রোগী শনাক্তের প্রথম দিনেই দেয়া হচ্ছে দুটি ইভা’রমেকটিন আর ডক্সিসাইক্লিন দেয়া হচ্ছে সাত দিনে সাতটি। তাতেই মিলছে সুফল।

কেন্দ্রীয় পু’লিশ হাসপাতা’লের চিকিৎসক পু’লিশ সুপার মো. এম’দাদুল হক বলেন, ‘আম’রা লক্ষ করছি কয়েকদিন ধরে রোগী সেরে উঠছে প্রতিদিন প্রায় ১০০ করে। দুটি ইভা’রমেকটিন, ডক্সিসাইক্লিন ১০০ মিলিগ্রাম এই ওষুধে সুফল মিলছে।’

এমন জরুরি সময়ে এসব ওষুধ ব্যবহারে নিষেধ নেই বিশেষজ্ঞদের। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে বিস্তর গবেষণার তাগিদ তাদের।

বাংলাদেশ ফার্মাকোলজিক্যাল সোসাইটি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সায়েদুর রহমান বলেন, ‘এ ওষুধ দিয়ে ভালো ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে এ ধরনের প্রচারণা বি’ভ্রান্তি সৃষ্টি করবে। তাই গবেষণা করা ফলাফলের জন্য অ’পেক্ষা করা প্রয়োজন।’

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ভা’রপ্রাপ্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা বলছেন, বিষয়টি আমলে নিয়ে কাজ করছেন তারা।



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button
Close
%d bloggers like this: