Uncategorized

নিজের সমস্ত সঞ্চয় দিয়ে গরিবের মুখে খাবার তুলছেন পোস্টমাস্টার

‘জীবে প্রেম করে যেই জন, সেই জন সেবিছে ঈশ্বর’- যত সহজে আমরা এ কথা হামেশাই বলে থাকি, বাস্তবে কতজন তা করতে পারি ?

তবে, করোনার আ’ত’ঙ্কে দেশজুড়ে চলা লকডাউনে এমন অনেক মানুষেরই কিন্তু দেখা মিলছে, যাঁরা ডাক্তার-স্বাস্থ্যকর্মী-পুলিশ না হয়েও মানুষের জন্যে আপ্রাণ সেবা করে চলেছেন।

এবার খোঁজ পাওয়া গেল বাঁকুড়ার পাত্রসায়ের ব্লকের এক পোস্টমাস্টারের। লকডাউনে গরিব মানুষের মুখে খাবার তুলে দিচ্ছেন নিজের যাবতীয় সঞ্চয় দিয়ে। তাতেই তিনি সুখী। ওই পোস্টমাস্টারের নাম সুব্রত চট্টোপাধ্যায়।

নিজের বেতন ছাড়াও যা সঞ্চয় তিনি করেছেন, সেই সব কিছু দিয়েই গরিব মানুষের খাওয়ার ব্যবস্থা করছেন তিনি। তবে, নিজের এই কাজকে খুব সামান্য বলেই মনে করেন তিনি। তার কথায়, এত মানুষ সমস্যায় পড়েছেন। আমি সামান্য চেষ্টা করছি ওঁদের পাশে থাকার। এটা আমার কর্তব্য।

আর ছেলের এই কাজে সর্বত সমর্থন দিয়ে পাশে রয়েছেন সুব্রত বাবুর মা চাঁপা চট্টোপাধ্যায়। তার কথায়, শুধু নিজেরা কেন, এই পরিস্থিতিতে সকলেই ভালো থাকুক। আমার ছেলে যা করছে, তাতে তো আপত্তি তোলার কথাই নেই। মানুষ ভালো থাকুক। ওঁকে আশীর্বাদ করুক।

গ্রামের পোস্টমাস্টারের এহেন কাজে খুশি গ্রামীবাসীরাও। সকলেই একবাক্যে বলছেন, সুব্রত বাবুর মতো মানুষরা আছেন বলেই এখনও পৃথিবী সুন্দর। মনে হয়, মানুষের মধ্যে মানবিকতাই শ্রেষ্ঠ জায়গায় রয়েছে।

বেনাপোল দিয়ে দেশে ফিরলেন আরো ২১৭ বাংলাদেশী

করোনা’ভা’ইরাসের কারণে ভারতে চলমান লকডাউনে বিভিন্ন স্থানে আটকা পড়া আরও ২১৭ বাংলাদেশী মঙ্গলবার বিকালে দেশে ফিরেছেন।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ওসি আহসান হাবিব জানান, ফেরত আসাদের বিশেষ নিরাপত্তায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে।

ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে সেনাবাহিনী, পুলিশ, বিজিবি, উপজেলা প্রশাসন ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তাদের যশোরের ঝিকরগাছা থানার গাজির দরগাহ মাদরাসায় কোয়ারেন্টাইনে নিয়ে যান।

শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পুলক কুমার মন্ডল বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভারত থেকে ফেরত আসা যাত্রীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে ১৪ দিন রাখা হচ্ছে।

আজ মঙ্গলবার যেসব যাত্রী দেশে এসেছেন তাদের আমরা যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের গাজিরদরগাহ মাদরাসায় রেখেছি। সেখানে তারা ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার পর কারও শরীরে করোনা সংক্রামক ধরা না পড়লে তারা সরাসরি বাড়ি চলে যাবেন। সূত্র : ইউএনবি…





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button
Close
%d bloggers like this: