Uncategorized

ঘটনার সুশান্তের দিদিকে ফোন করেছিলেন রিয়া, চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস – Kolkata24x7

মুম্বই- সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত শুরু করেছে বিহার পুলিশও। বুধবার সুশান্তের দিদিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, সুশান্ত সিং রাজপুতের দিদি মিতু জানিয়েছেন ৮ জুন তাঁকে ফোন করেছিলেন অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী।

৮ জুন অর্থাৎ সুশান্তের মৃত্যুর ৬ দিন আগে রিয়া তাঁকে ফোন করে জানান যে সুশান্তের সঙ্গে তাঁর বড় বচসা হয়েছে। এরপরে সুশান্তের সঙ্গে গিয়ে কয়েকদিন থাকেন তাঁর দিদি মিতু। ১২ জুন পর্যন্ত সুশান্তের সঙ্গে তিনি ছিলেন। বাড়িতে নিজের বাচ্চারা রয়েছে বলে ফিরে যান তিনি। আর তার ঠিক দু দিন পরেই অঘটন ঘটে।

সিদ্ধার্থ পিঠানি ১৪ জুন সুশান্তের দিদিকে ফোন করে বলেন ঘরের দরজা কিছুতেই খুলছেন না সুশান্ত। সঙ্গে সঙ্গে বান্দ্রার উদ্দেশ্যে রওনা দেন মিতু। বিহার পুলিশকে তিনি জানান, একদিকে যেমন বান্দ্রার বিকে রওনা দেন অন্যদিকে অনবরত সুশান্তকে ফোন করতে থাকেন তিনি।

কিন্তু কেউ কোনো উত্তর দেননি। এরপরে সুশান্তের বাড়িতে পৌঁছতেই সেখানে একজনকে ঘরের লক ভাঙার জন্য ডাকা হয়। দরজা ভেঙ্গে এরপর সুশান্তকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান তারা। জানা যাচ্ছে ভারসোভাতে বাড়িতেই মিতু সিং এর বয়ান রেকর্ড করা হয়।

সম্প্রতি রাজীব নগর থানায় রিয়া চক্রবর্তী ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়ার সহ আরো বেশ কয়েকটি অভিযোগ এনেছেন সুশান্তের বাবা কে কে সিং। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৪১, ৩৪২, ৪২০, ৩০৬ এবং ১২০ (বি) ধারায় রিয়া চক্রবর্তী ও তাঁর পরিবারের ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী সন্ধ্যা চক্রবর্তী, শ্রুতি মোদী, শৌভিক চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

সুশান্তের বাবা রিয়ার বিরুদ্ধে খুবই গুরুত্বপূর্ণ অভিযোগ এনেছেন। তাঁর অভিযোগ, রিয়া সুশান্তকে তাঁর পরিবার থেকে দূরে করে রেখেছিলেন এবং সম্পূর্ণ নিজের অধীনে রাখতে চেয়েছিলেন।

রিয়া সুশান্তের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টও সামলাতেন। এমনকী অভিযোগ, সুশান্তের অ্যাকাউন্ট থেকে কোটি কোটি টাকা তোলা হয়েছে। এমনই জানিয়েছেন রাজিব নগর থানার এক পুলিশ আধিকারিক।

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button
Close
%d bloggers like this: