Uncategorized

ক’লকডাউন উঠে গেলে সুস্থ থাকতে যা করবেন

করো’না ভা’ইরাস কবে নিশ্চিহ্ন হবে? করো’না র আত’ঙ্ক থেকে মু’ক্তি মিলবে কবে?- এ কথা এখনই বলা সম্ভব হচ্ছে না। খোদ বিশ্ব স্বা’স্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও) মনে করে, করো’না থেকে পুরোপুরি মু’ক্তি কোনোদিনই হয়ত মিলবে না। সংস্থাটির মতে, ‘সবার বাস্তববাদী হওয়াই ভালো, কারণ, এই রো’গটা কবে একেবারে চলে যাবে তা কেউ বলতে পারে না।’

তবে, করো’না সংক্র’মণ ের মধ্যেই ধীরে ধীরে লকডাউন উঠে যাচ্ছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। বাংলাদেশও হয়তো অচিরেই সে পথে যাবে। তার মানে হচ্ছে করো’না কে স’ঙ্গে নিয়েই বাঁচতে শিখতে হবে।

বিষেজ্ঞদের মতে, করো’না থেকে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে সব সময়ের জন্য কিছু নিয়ম মেনে চলার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে আমাদের। তাহলে হয়তো করো’না র স’ঙ্গে বসবাস করেও আক্রা’ন্ত হওয়া থেকে নিজেকে এবং অন্যকে বাঁচিয়ে রাখা মানুষের জন্য সহজ হবে।

জে’নে নেওয়া যাক কী কী পদক্ষে’প আমাদের আক্রা’ন্ত হওয়া থেকে বাঁ’চাতে পারে:

১. করো’না থেকে বাঁচতে হাত ধোয়ার অভ্যাসটি অবশ্যই ধ’রে রাখতে হবে। গণপরিবহনে উঠলে, ভিড় পথে চলাফেরার পর, লিফটের বোতাম, দরজার হাতল বা সিঁড়ির রেলিং ধ’রলে, অনেকে ব্যবহার করে এমন কিছুতে হাত দিলে, টাকা দেওয়া-নেওয়া করলে সেই হাত নাকে-মুখে-চোখে বা অন্য কোথাও লা’গার আগেই ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে।

২. খাওয়ার আগে, টয়লেট থেকে এসে নিয়মিত হাত পরি’ষ্কার ক’রতে হবে।

৩. বাইরে বের হওয়ার সময় স’ঙ্গে ছোট একটা সাবান ও ৭০ শতাংশ অ্যালকোহল আছে এমন স্যানিটাইজার নেয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।

৪. সাধারণ মানুষের গ্লাভস পরার দরকার নেই। নিয়ম মেনে না পরলে উল্টো বি’পদের আশ’ঙ্কা রয়েছে। এর চেয়ে হাত ধুয়ে নেওয়া অনেক নি’রাপদ।

৫. রাস্তায় বের হলে এখনকার মতো সবসময় মাস্ক ব্যবহার ক’রতে হবে। অফিসেও মাস্ক পরে থাকতে হবে। কাপ’ড়ের ট্রিপল লেয়ার মাস্ক ব্যবহার সবচেয়ে ভালো। তবে গরমে স’মস্যা বোধ করলে ডাবল লেয়ারের বড় আ’কারের মাস্ক ব্যবহার করুন। বাড়ি ফি’রে সাবান পানি দিয়ে মাস্ক ধুয়ে শুকিয়ে নিন।

৫. মাস্ক পরলেও অন্যদের স’ঙ্গে ৬ ফুটের বেশি দূ’রত্ব বজায় রাখতে হবে। না হলে কমপক্ষে ৩ ফুট দূ’রত্ব রাখা জ’রুরি।

৬. চোখ নি’রাপদ রাখতে চশমা না হয় সানগ্লাস ব্যবহার করুন। কারণ চোখ দিয়েও জী’বাণু ঢু’কতে পারে।

৭. নারীদের বড় চুল হলে ভালো করে বেঁধে স্কার্ফ বা ওড়নায় মাথা ঢেকে নেবেন। গণপরিবহন ব্যবহার করলে খোলা চুল অন্যের নাকে-মুখে উড়ে লাগতে পারে। সেই চুল পরে নিজে’র নাকে-মুখে লাগলে বি’পদ হতে পারে।

৮. বাইরে বের হলে নিয়মিত ধোয়া যাবে এমন জুতা ব্যবহার করুন।

৯. এ সময় কোনো ধ’রনের অলংকার ব্যবহার না করাই ভালো। কারণ ধাতুর উপর প্রায় পাঁচ দিন থেকে যেতে পারে করো’না র জী’বাণু। এখন ঘড়ি ব্যবহারও ঠিক নয়।

১০. অফিসে নিজে’র জন্য আ’লাদা কাপ, প্লেট রেখে দিন। খাওয়ার আগে সেগুলো সাবান-পানি দিয়ে ধুয়ে ব্যবহার করুন।

১১. বাইরে খাওয়ার অভ্যাস থেকে বিরত থাকুন। বাসা থেকে নিয়মিত খাবার নিয়ে যান। এ সময় রাস্তার পাশের কোনো দোকান থেকে কিছু খাওয়া ঠিক নয়।

১২. জুতা বাইরে খু’লে ঘরে ঢুকবেন। জুতায় জী’বাণুনাশক স্প্রে করে প্রতিদিন রোদে দিন। না হয় ধুয়ে ফেলুন।

১৩. বাইরে থেকে ফি’রে জামাকাপড় ধুয়ে ফেলবেন।

১৪. মোবাইল জী’বাণুমু’ক্ত ক’রতে স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন।

১৫. বাড়িতে কাজে’র লোক বা অন্য কেউ এলে ঘরে ঢোকার আগে হাত এবং পা ভালো করে সাবান পানি দিয়ে ধুতে উৎসাহিত করুন।

১৬. খাওয়া-দাওয়ার দিকে বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখতে হবে। এ সময় ভাজাপোড়া কম খাওয়াই ভালো। এর পরিবর্তে খাদ্য তালিকায় রো’গ প্র’তিরো’ধ ক্ষ’মতা বাড়ায় এমন খাবার রাখতে হবে।



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button
Close
%d bloggers like this: