Uncategorized

অন্তঃস’ত্ত্বা স্ত্রীকে পাটাতনে বসিয়ে ৭০০ কিমি পাড়ি দেয়ার ছবি ভাইরাল

চাকা লা’গানো কাঠের পাটাতনে বসে রয়েছেন অ’ন্তঃস’ত্ত্বা স্ত্রী ও শি’শুকন্যা। সেই পাটাতন টেনে নিয়ে চলেছেন এক যুবক। ৭০০ কিলোমিটার পথের অধিকাংশ এভাবেই পাড়ি দিয়ে ভারতের হায়দরাবাদ থেকে মধ্যপ্রদেশের বালাঘাটে নিজে’র গ্রামে পৌঁছেছেন পরিযায়ী শ্রমিক রামুর পরিবার। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে সেই ভিডিও।

রামু জা’নিয়েছেন, শুরুতে শি’শুকন্যা কোলে নিয়ে তিনি ও তার অ’ন্তঃস’ত্ত্বা স্ত্রী ধন্বন্তা হাঁটতে শুরু করেছিলেন। কিন্তু ধন্বন্তার পক্ষে এতটা পথ হাঁটা সম্ভব ছিল না। সারাদিনে মেলেনি খাবারও। রাস্তায় কাঠের পাটাতন জোগাড় করে তাতে চাকা লা’গিয়ে অস্থা’য়ী বন্দোবস্ত করেন রামু।

তবে তেলঙ্গানা থেকে মহারাষ্ট্রে প্রবেশের পরে এসডিও নীতেশ ভার্গবের নেতৃত্বাধীন পু’লিশের একটি দলের নজরে আসে অস’হায় ওই শ্রমিক পরিবারটি। সকলের খাবারের বন্দোবস্ত করে পু’লিশ। রামুর কন্যাকে এক জোড়া জুতো দেন নীতেশ।

তার কথায়, ‘‘ওই পরিবারের শা’রীরিক পরীক্ষা করানোর পরে বাড়ি পৌঁছনোর জন্য গাড়ির বন্দোবস্ত করা হয়।’’ মঙ্গলবার গ্রামে পৌঁছেছে রামুরা। আপাতত ১৪ হোম কোয়রান্টিনে থাকতে হবে তাদের।

অপর এক ভিডিয়োয় দেখা গিয়েছে, ক্লান্ত হয়ে সুটকেসের উপরেই ঘুমিয়ে পড়েছে এক বাচ্চা। আগরা হাইওয়ের উপর দিয়ে সন্তান-সহ সুটকেস টেনে নিয়ে চলেছেন এক মহিলা। পঞ্জাব থেকে এ ভাবেই ৮০০ কিলোমিটার দূ’রে ঝাঁসির উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন ওই মহিলা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল অপর একটি ভিডিওয়ে দেখা যাচ্ছে, বলদকে স’ঙ্গে নিয়ে গাড়ি টেনে নিয়ে চলেছেন এক পরিযায়ী শ্রমিক। গাড়িতে ভাই ও শাশুড়ি। এ ভাবেই ইনদওরের মও থেকে ২৫ কিলোমিটার দূ’রে পাত্থর মুন্ডলা গ্রামে পৌঁছেছেন তারা।

লকডাউনের জে’রে একদিকে কাজ নেই। জুটছে না ভরপে’ট খাবারও। তার সুবাদেই নিজ ঘরে ফিরতে মরিয়া ভারতের ভিন রাজ্যে কাজে যাওয়া শ্রমিকেরা। ইতোমধ্যেই ট্রেনের তলায় ছিন্নভিন্ন হয়েছে ১৬ জনের দে’হ। দুর্ঘ’টনায় প্রা’ণ হারিয়েছেন আরও অনেকে। এমনকি রাস্তায় প্র’সবের ঘ’টনাও সামনে এসেছে। মোদী-শাহের রাজ্য গুজরাতে সুরত, কচ্ছে একের পর এক শ্রমিক অসন্তোষে জে’রবার রূপাণী সরকারও। শ্রমিকদের ফেরাতে বিশেষ ট্রেনের বন্দোবস্ত করা হয়েছে। কিন্তু তা যে প্রয়োজনের তুলনায় নগণ্য, রামুদের ঘ’টনা সেই ছবিই তুলে ধ’রেছে। আনন্দবাজার।



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button
Close
%d bloggers like this: