Uncategorized

অধিকৃত কাশ্মীরে বাঁধ নির্মাণ পাকিস্তানের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগ, সাফাই চিনের – Kolkata24x7

বেজিং : পাক অধিকৃত কাশ্মীরে বাঁধ নির্মাণের জন্য বরাবরই বাধা দিয়ে এসেছে ভারত। তবে সে সব উপেক্ষা করে চিন এতদিন পাকিস্তানের পাশেই ছিল। শুক্রবার চরম হুঁশিয়ারি দেওয়ার পর বেশ কিছুটা সুর নরম করেছে বেজিং। তাদের দাবি এই বাঁধ নির্মাণে একা চিন নেই। এই বাঁধ নির্মাণ আসলে দুই দেশের মধ্যে সুসম্পর্কের নমুনা। বাঁধ নির্মাণ করার জন্য পাকিস্তান ও চিনের মধ্যে বড় অঙ্কের চুক্তি হয়েছে বলে দাবি বেজিংয়ের।

পাক অধিকৃত কাশ্মীরে গিলগিট-বালতিস্তানে যে বাঁধ নির্মাণ করতে চলেছে চিন, তা পুরোপুরি চিন ও পাকিস্তানের মধ্যে অর্থনৈতিক লেনদেন ও পারস্পরিক বোঝাপড়ার ফসল। অনলাইন সাংবাদিক সম্মেলনে চিনের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিঝিয়ান জানান, কাশ্মীর ইস্যুতে চিনের অবস্থান স্পষ্ট। অর্থনৈতিক বোঝাপড়ার মাধ্যমেই দুদেশের সহযোগিতায় এই বাঁধ নির্মাণ হচ্ছে। এলাকার মানুষদের উন্নয়নের চেষ্টায় পাকিস্তানের পাশে রয়েছে চিন।

উল্লেখ্য, অধিকৃত কাশ্মীর ঘেঁষা গিলগিট-বালতিস্তানে দীর্ঘদিন ধরে একটি বাঁধ প্রকল্প করার চেষ্টা করছিল পাকিস্তান। কিন্তু ভারতের বাধায় ভেস্তে যাচ্ছিল সেই পরিকল্পনা। এমনি ওয়ার্ল্ড ব্যাংক থেকে সাহায্য পাওয়ার আশাও শেষ হয়ে এসেছিল। এবার পাকিস্তানের আশা চিন দেবে এই প্রজেক্টের টাকা।

হিমালয় থেকে বয়ে যাওয়া সিন্ধু নদের উপর একটি বাঁধ প্রকল্পের পরিকল্পনা করছিল পাকিস্তান। কিন্তু ভারত বাধা দেওয়ায় টাকা পাওয়া সমস্যা হয়ে উঠছিল। বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য এবার চিনের সহযোগিতাতেই কাশ্মীরের হিমালয় পার্বত্য অঞ্চলে সিন্ধু নদে ওই বাঁধ নির্মাণের পরিকল্পনা করছে পাকিস্তান।পাকিস্তান-নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে বুঞ্জি জলবিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণ করা হবে। ওই বাঁধ তৈরিতে খরচ হবে এক হাজার ২৬০ কোটি ডলার। সাত বছরে বাঁধটি নির্মাণ করা হবে।

বৃহস্তিবার চিনের এই উদ্যোগের কড়া সমালোচনা করে ভারত। পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীর দখল করে এমনিতেই জবরদখল করেছে, তার ওপর চিন সেখানে বাঁধ নির্মাণ করে পাকিস্তানকে অনৈতিক কাজে সাহায্য করছে। এই ধরণে দ্বিমুখী আচরণ কোনওভাবেই বরদাস্ত করা হবে না বলে সাফ জানিয়ে দেয় দিল্লি।

বুধবার পাকিস্তান চিনের সঙ্গে ৪৪২ বিলিয়নের একটি চুক্তি সই করে। পাকিস্তান সেনার বাণিজ্যিক অংশ ফ্রন্টিয়ার ওয়ার্কস অর্গানাইজেশনের সঙ্গে যৌথভাবে বাঁধ নির্মাণের কাজ করবে চিনের সরকারি সংস্থা চায়না পাওয়ার।





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button
Close
%d bloggers like this: